ইবন রজব আল হাম্বলী:কাতিবুল ফাতহুল বারী

নাম, কুনিয়্যাহ্,বংশপরিচয়

তিনি ছিলেন মহান ইমাম,হাফিয,সূক্ষ্নদর্শী যইন-উদ-দীন ‘আবদুর রহমান বিন আহমদ বিন ‘আবদির রহমান বিন আল হাসান বিন মুহাম্মদ বিন আবদিল বারাকাত মাসঊদ আস সালামী আল বাগদাদী আল হাম্বলী আল দামিশকী

{আল বাগদাদী}=> তাঁর জন্মস্থান
{আল হাম্বলী}=> তাঁর মাযহাব
{আল দামিশকী}=> তাঁর বাসস্থান ও মৃত্যুস্থান।

তার কুনিয়্যাহ্ ছিলো আবুল ফারাজ আর তাঁর ডাকনাম ছিলো ইবন রজব। এটি(ইবনে রজব) তাঁর দাদার ডাকনাম ছিলো, কারণ তিনি রজব মাসে জন্মগ্রহণ করেন।

জন্ম ও বেড়ে উঠা

তিনি ৭৩৬ হিজরীতে বাগদাদে জন্মগ্রহণ করেন।
তিনি জ্ঞানচর্চার জন্য বিখ্যাত,ধর্মনিষ্ট এবং সম্ভ্রান্ত বংশীয় পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

শিক্ষকবৃন্দ

তিনি তাঁর সময়ের বিশিষ্ট শিক্ষকদের নিকট পড়াশোনা এবং ইলম অর্জন করেন।

দামেস্কে তিনি পড়াশোনা করেন-

  • – ইবনুল ক্বাইয়্যিম আল জাওযীয়্যাহ্;
  • – যইন-উদ-দীন আল ‘ইরাকী;
  • – ইবন আন নাকীব;
  • – মুহাম্মদ বিন ইসমাঈল আল খাবায্;
  • – দাউদ বিন ইবরাহীম আল ‘আতার;
  • – ইবন কাদী আল জাবাল(আবুল আব্বাস আহমদ);
  • – আহমদ বিন আবদ্ আল হাদী আল হাম্বলী

মাক্কাতে তিনি “আল ফাখর ‘উসমান বিন ইউসুফ আন-নুওয়াইরী”-এর নিকট পড়াশোনা করেন।

জেরুজালেমে “আল হাফিদ আল ‘আলাঈ” -এর নিকট পড়াশোনা করেন।

মিসরে তিনি “সদর উদ দীন আবুল পাতহ্ আল মাইদুমী” এবং “নাসীর উদ দীন বিন আল মুলুক”-এর নিকট হাদীস শ্রবণ করেন।

আল্লাহ তাদের সকলের উপর রহম করুন।

ইবন রজব নিজেকে জ্ঞান অর্জনে উৎসর্গ করেছেন। তিনি গবেষণা,লিখা,রচনা,শিক্ষকতা, জ্ঞানের বিভিন্ন শাখায় বিচরণ, উপযুক্ত আঈন প্রবর্তনের কাজে নিজের জীবনের সকল সময় ব্যয় করেছেন। তাকে বানু উমাইয়্যা জামে’ মসজিদে মঙ্গলবার হালাকা প্রদানের জন্য নিযুক্ত করা হয়।

ছাত্রবৃন্দ

হাদীসশাস্ত্রের ইমাম ইবনু রজব রহিমাহুল্লাহ্-এর কাছে পড়াশোনার জন্য বিভিন্ন স্থান হতে ছাত্র আসতেন।
তাঁর ছাত্রদের মধ্যে উল্লেযোগ্য হলেন:

  • ১- আবএল ‘আব্বাস আহমদ বিন আবি বাকর বিন ‘আলী আল হাম্বলী(ইবন আর-রিসাম) (মৃ.৮৮৪ হি.);
  • ২- মিসরের মুফতি আবুল ফাদল্ আহমদ বিন নাসির বিন আহমদ(মৃ. ৮৪৪হি.);
  • ৩- দাঊদ বিন সুলাইমান আল মাউসালী(মৃ ৮৪৪ হি.);
  • ৪- ‘আবদুর রহমান বিন আহমদ বিন মুহাম্মদ আল মুক্বরী;
  • ৫- যইন-উদ-দীন ‘আবদুর রহমান বিন সুলাইমান বিন আবদিল কারাম(আবু শি’আর);
  • ৬- আবু দার আয-যারাকাশী(মৃ. ৮৪৬হি.);
  • ৭- বিচারক ‘আলা-উদ-দীন ইবন আল-লাহাম আল বা’আলী(মৃ. ৮০৩ হি.);
  • ৮- আহমদ বিন সাইফুদ্দীন আলা হামাওয়ী.

আল্লাহ্ তাদের সকলের উপর রহম করুন।

বিভিন্ন মনীষীদের উক্তি

“আল জাওহার-উল-মুনাদ্দাদ” -এ ইবন ক্বাদী শুহবাহ্ রহিমাহুল্লাহ্ তাঁর জীবনী সম্বন্ধে বলেন,

“তিনি জ্ঞান বিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখায় পারদর্শী ছিলেন, হাম্বলী ফিকহ্ পূর্ণভাবে আয়ত্তের পূর্ব পর্যন্ত তিনি এর অধ্যয়নে মগ্ন থাকেন।তিনি তার জীবনকে হাদীসশাস্ত্রের বিভিন্ন অপূর্ণতা পূরণের কাজে উৎসর্গ করেছিলেন,আর তিনি লেখা-লেখির জন্য নির্জনতাকে গ্রহণ করেছিলেন।”

ইনবা-উল-গামর্ -এ ইবন হাজার রহিমাহুল্লাহ্ বলেন,


তিনি হাদীসশস্ত্রে অত্যন্ত দক্ষ ব্যক্তি ছিলেন।উসুলুল হাদীস, সনদ-মতন,রিজালশাস্ত্র,হাদীসের ব্যাখ্যা সম্পর্কিত জ্ঞানে পারদর্শী ছিলেন।

ইবরাহীম বিন মুহাম্মদ ইবন মুফলিহ্ রহিমাহুল্লাহ্ বলেন,

তিনি ছিলেন শাইখ,মহান জ্ঞানী,হাফিয দুনিয়াবিমূখ ব্যক্তি।তিনি ছিলেন হাম্বলী মাযহাবের শাইখ এবং বহু উপকারী গ্রন্থ রচনা করেন।

তার আক্বীদা ও ফিকহ্

ইবন রজব রহিমাহুল্লাহ আক্বীদায় সালাফদের অনুসারী ছিলেন তিনি এই বিষয়ে বহু কিতাব রচনা করেন।

ফিকহ্-এ তিনি ছিলেন ইমাম আহমদ ইবন হাম্বল রহিমাহুল্লাহ্ র অনুসারী।তাকে হাম্বলী ফিকহ্-এর অন্যতম শ্রেষ্ট বিদ্বান ও দক্ষ ব্যক্তিত্ব হিসেবে গণ্য করা হয়।
ফিকহ্ বিষয়ে তার রচিত বই “আল ক্বাওয়ইদ্ আল কুবরা ফিল ফুরু’” সম্বন্ধে ইবন শুবহা রহিমাহুল্লাহ্ এবং ইবন মুফলিহ্ রহিমাহুল্লাহ্ বলেন,

“এটি তাঁর (হাম্বলী) মাযহাব বিষয়ে সম্পূর্ণ জ্ঞানের ইঙ্গিত করে।”

জ্ঞান-অর্জনের বিষয়ে তিনি অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি বই লিখেন,যার নাম
“বয়ান ফাদালু ‘ইলম ইস সালাফ ‘আলাল খালাফ”।

তার কাজসমূহ

লিখালিখিতে আল হাফিয ইবন রজব রহিমাহুল্লাহ্ ছিলেন যথেষ্ট পারদর্শী।তিনি তাফসীর,হাদীস, ফিকহ্, রাকা’ইক(অন্তর প্রশান্তকরণ) এবং ইতিহাস নিয়ে অগণিত জনপ্রিয় বই রচনা করেন, যেগুলো অত্যন্ত উপকারী।

তাঁর রচিত বইসমূহের মধ্যে রয়েছে,

তাফসীর এবং ক্বুরআনিক সাইন্স সম্পর্কিত :

  • ১- তাফসীর সূরা ইখলাস;
  • ২- তাফসীর সূরা আল ফাতিহা;
  • ৩- তাফসীর সূরা আন-নাসর্;
  • ৪- ই’রাব আল বাসমালাহ্;
  • ৫- আল ইস্তিগনা বিল ক্বুরআন।

হাদীসশাস্ত্র সম্পর্কিত :

  • ১- শরহ্ জামি’ আত-তিরমিযী;
  • ২- শরহ্ ‘ইলাল আত-তিরমিযী;
  • ৩- ফাতহুল বারী বি শরহ্ সহীহ আল বুখারী;
  • ৪- জামি’ উল ‘উলুম ওয়াল হিকাম ফি শরহ্ খামসীনা হাদিথান মিন জাওয়ামি’ ইল কালীম।
  • তিনি আলাদা আলাদা হাদীসের ব্যাখ্যা পুস্তিকা আকারেও রচনা করেছেন,যেমন:
  • ৫- শরহ্ হাদীস: মা দি’বানি জা’ইআন উরসিলা ফি গানাম…(প্রাচুর্য এবং পদমর্যাদার অভিলাষ);
  • ৬- ইংতিয়ার আল আওলা ফি শরহ্ হাদীস ইখতিসাম আল মালা আল আ’আলা;
  • ৭- নুর উল ইক্বতিবাস ফি মিশকাত ওয়াসিয়াত ইন নাবী লি ইবন ‘আব্বাস;
  • ৮- গায়ত-উন-নাফা’ ফি শরহ্ হাদীস তামছীল উল মু’মিন বি খামাত-ইয-যরা’;
  • ৯- কাশফ উল কুরবাহ্ ফি ওয়াসিল হালি আহলিল গুরাবা।

এবং এছাড়া আরো অনেক বই রয়েছে।

ফিকহ্ সম্পর্কিত:

  • ১- আল ইসতিখরাজ ফি আহকাম-ইল-খারাজ;
  • ২- আল ক্বাওয়া’ইদ-উল-ফিকহিয়্যাহ্;
  • ৩- কিতাব আহকাম-উল-খাওয়াতীম ওয়া মাআ ইয়াতা’আলাক্বু বিহা।
  • জীবনী এবং ইতিহাস সম্পর্কিত:
  • ১- আয যাইল ‘আলা ত্বাবাক্বাত-ইল-হাম্বলিয়্যাহ্;
  • ২- মুখতাসার সীরাহ্ ‘উমর বিন ‘আবদিল ‘আযীয;
  • ৩- সীরাহ্ ‘আবদুল মালিক বিন ‘উমর বিন ‘আবদিল ‘আযীয।
  • অন্তর প্রশান্তকরণ এবং উপদেশ সম্পর্কিত বই:
  • ১- লাতা’ইফ-উল-মা’আরিফ ফিমা লি-মাওয়াসিম-ইল ‘আম মিন আল ওয়াদা’য়ীফ;
  • ২- আল তাক্ওয়ীফ মিন আন-নার ওয়াত-তা’রীফ বি হালি দার-ইল-বাওয়ার;
  • ৩- আল ফারক্ বাইনা আন নাসীহাহ্ ওয়াত তা’য়ীর(উপদেশ এবং নিন্দার মধ্যে পার্থক্য);
  • ৪- আহওয়াল আহলিল ক্বুবুর।

মৃত্যু

আল হাফিয ইবন রজব রহিমাহুল্লাহ্ ৪ রমাদান ৭৯৫ হিজরী,সোমবার রাতে, দামেস্কের আল হুমাইরিয়্যাহ্তে মৃত্যুবরণ করেন।পরদিন তার জানযা অনুষ্টিত হয় এবং বাব আস সগীরে শাইখ আবুল ফারাজ আশ শিরাজীর কবরের পাশে তাকে দাফন করা হয়।

মূল: ‘ইক্বাদ্-আল-হিমাম’ (মুখতাসার জিমি’ উল ঊলুম ওয়াল হিকাম থেকে অনুবাদিত,সংক্ষেপিত এবং সংশোধিত।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *