উসুল অধ্যয়নের পদ্ধতি- শাইখ আব্দুল ওয়াহিদ আল-আযহারি

উসুল নিয়ে শায়েখ আব্দুল ওয়াহেদ আযহারীর প্রস্তাবিত দেরাসা পদ্ধতিঃ

১. ছাত্র الورقات এর মতন মুখস্ত করবে মাহাল্লীর শরাহ সহ অথবা উমরীতীর نظم الورقات। অতঃপর কোন ওস্তাজের কাছে হেফজ করা মতন শোনাবে। ওস্তাজ ফাক্কুল এবারত, তসবীরে মাসায়েল, তমসীলসহ কিছু কিছু ফুরুয়ের প্রয়োগ শিখাবেন। এরপরে شرح عبد الحميد قدس এবং حاشية النفحات পড়বে। আধুনিক সময়ে ওয়ারাকাতের উপর শায়খ আবদুল্লাহ আল ফাওজানের ভালো শরাহ রয়েছে।

২. ওয়ারাকাতের উপর ইমাম রামলীর শরাহ পড়বে।

৩. قواعد الأصول ومعاقد الفصول পড়বে আবদুল্লাহ ফাওজানের শরাহসহ। এক্ষত্রে হাম্বলী মাজহাবের অবস্থান বোঝার খাতিরে পাশাপাশি شرح الكوكب المنير পড়া কর্তব্য যাতে ছাত্র ব্যাখ্যাকারী ও মূল লেখকের মধ্যকার দ্বিমতগুলো বুঝতে পারে।

৪. ইমাম বা’লীর تلخيص الروضة পড়বে। অতঃপর ইমাম আত তুফীর البلبل- مختصر الروضة পড়বে তার নিজস্ব ৩ খন্ডের শরাহ সহকারে।

৫. ইবনে নাজ্জারের شرح مختصر التحرير পড়বে। অতঃপর ইমাম ফুতুহীর مختصر التحرير এবং ইমাম সুয়ুতীর الكوكب الساطع মুখস্ত করবে হাম্বলী টিকা সহকারে।

৬. ইমাম মারদাবীর التحبير شرح التحرير পড়বে।

৭. ইমাম মাহাল্লীর جمع الجوامع পড়বে البناني والعطار হাশিয়াদ্বয় এবং ইমাম যারকাশীর تشنيف المسامع সহকারে।

এ পর্যায়ে ইমাম বায়দাবীর المنهاج এর শরাহগুলো মোরাজায়া করবে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে সুবকিয়াইনের الإبهاج شرح المنهاج, ইমাম মুতীয়ীর হাশিয়া সহ ইমাম ইসনাবীর نهاية السول ।

এরপর ইবনে হাজেবের مختصر এর শরাহগুলো মোরাজায়া করবে। এর মাঝে ইবনুস সুবকীর رفع الحاجب, আসফাহানীরبيان المختصر, ইজীর شرح العضد গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়াও যারকাশীর البحر المحيط থেকে ফায়দা নিবে। এই বইগুলো আয়ত্ত না হওয়া পর্যন্ত ছাত্রের জন্য উচিত নয় পরবর্তী পর্যায়ে যাওয়া।

ছাত্র এছাড়াও হানাফী কিছু কিতাব মোরাজায়া করবে। যেমনঃ التلويح এবং شروح التحرير। ফুরুয়ের তাখরীজ বোঝার জন্য যাঞ্জানীর তাখরীজুল ফুরু, ইসনাবীর التمهيد এবং ইবনে লাহহামের قواعد পড়বে।

৮. ছাত্র ইমাম গাজ্জালীর المستصفى, ইমাম আমিদীর الإحكام, ইমাম রাজীর المحصول ও তার উপর করা ইমাম কারাফীর শরাহ نفائس المحصول পড়বে। এগুলো ভালো করে মোতালায়া ও মোরাজায়া করবে। খুব যত্নের সাথে এই পর্যায়ের পড়াশোনা চালাতে হবে।

৯. ইমামুল হারামাইনের التلخيص ও البرهان, ইবনে সাময়ানীর قواطع الأدلة, শীরাজীর شرح اللمع, বাকীল্লানীর التقريب والإرشاد এবং এই তবকার অন্যান্য কিবারদের লেখা পড়বে।

এ পর্যায়ে হাম্বলী ছাত্র হিসেবে কাজী আবু ইয়ালার العدة, কালওয়াজানীর التمهيد, শায়খুল ইসলাম ইবনে আকীলের الواضح ভালো করে আয়ত্ত করতে হবে।

১০. ছাত্র এরপরে তার পছন্দ অনুযায়ী তাখাসসুস ঠিক করে পড়বে।

মন্তব্যঃ এই সিলেবাস একজন দক্ষ হাম্বলী উসুলী গড়ার জন্য রচিত। এই কারণে কলেবর বেশি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *