ওযু [পূর্বশর্ত এবং রুকন] – বিদায়াতুল আবিদ

[অনুবাদের সাথে <>, [] এবং ফুটনোটে বিভিন্ন কিতাব এবং দরস থেকে বুঝার সুবিধার্থে বিভিন্ন জিনিস সংযুক্ত করা হয়েছে। বাকিটা মতনের অনুবাদ]

ওযু হচ্ছে, শরীরের চারটি অংশে <মুখ, হাত, মাথা, পা> নির্দিষ্ট পদ্ধতিতে তাহুর পানি ব্যবহার করা।

তাসমিয়াহ <বিসমিল্লাহ বলা> যেসব ক্ষেত্রে ওয়াজিব1

১। এটির <ওযুর> ক্ষেত্রে।

২। গোসল।

৩। তায়াম্মুম।

৪। ওযুভঙ্গকারী রাতের <গভীর> ঘুম থেকে উঠে হাত ধোওয়ার পূর্বে।

৫। মৃতকে গোসল করানোর ক্ষেত্রে।

রাতে <গভীর2> ঘুম থেকে উঠার পর [পানির পাত্রের ভেতরে হাত ডুবানোর পূর্বে] নির্দিষ্ট নিয়ত এবং তাসমিয়াসহ উভয় হাত তিনবার ধোওয়া ওয়াজিব3

ওযুর আটটি পূর্বশর্ত4 রয়েছে, এগুলো হচ্ছে-

১। যা কিছু ওযুকে ওয়াজিব করে, তা বন্ধ হওয়া। <যেমন, হায়েয, নিফাস অথবা মলমুত্র ত্যাগ শেষ হওয়া>

২। নিয়ত- যা সব ধরণের শারই’ পবিত্রতা <যেমন, ওযু, গোসল> অর্জনের ক্ষেত্রেই শর্ত, শুধুমাত্র খাবাস অপসারণ বা অনুরুপ বিষয় ছাড়া।

৩। ইসলাম।

৪। আকল বা স্বাভাবিক জ্ঞানবুদ্ধি থাকা5

৫। তাময়িয/বুদ্ধি হওয়া6

৬। জায়েজ7 এবং তাহুর পানি ব্যবহার করা।

৭। যা পানিকে পৌঁছাতে বাধা দেয়8, তা অপসারণ করা।

৮। এবং [প্রযোজ্য ক্ষেত্রে] ইস্তিঞ্জা <বা ইস্তিজমার>।

ওযুর ছয়টি ফরয9

১। মুখ ধৌত করা; নাক এবং মুখ এর অন্তর্ভুক্ত।

২। <আঙ্গুলের মাথা থেকে> কনুইসহ উভয় হাত ধৌত করা।

৩। পুরো মাথা মাসেহ করা। দু’কান <এবং তাদের উপরের পৃষ্ঠের শুকনো অংশও> এর অন্তর্ভুক্ত10

৪। টাখনুসহ উভয় পা ধৌত করা।।

৫। ধারাবাহিকতা।

৬। নিরবিচ্ছিন্নতা।11

-এদুটি [ধারাবাহিকতা এবং নিরবিচ্ছিন্নতা] গোসলের ক্ষেত্রে অপরিহার্য নয়।


ফুটনোট:

1 এই ক্ষেত্রে যদি কেউ ওয়াজিব পালনে ভুলে যায়, অথবা না জানার কারণে বলতে বাদ দেয়, তবে তার আর পুনরাবৃত্তি করার প্রয়োজন নেই।

2 বিভিন্ন ধরণের হতে পারেঃ

ক) ব্যক্তি আশেপাশের শব্দ শুনতে এবং বুঝতে পারছে। এটা বস্তুত ঘুম নয়।

খ) ব্যক্তির আশেপাশের শব্দ কানে আসছে বা শুনতে পাচ্ছে কিন্তু বুঝতে পারছে না। এটা হালকা ঘুম।

গ) ব্যক্তি আশেপাশের শব্দ শুনতেও পাচ্ছে না, বুঝতেও পারছে না। এটা গভীর ঘুম।

[কাদ্দুমির রিসালাহ, বাংলা অনুবাদ ও ফুটনোট- মোহাম্মাদ শাহনেওয়াজ নাঈম]

3 এই মাস’আলা তাআব্বুদি, (অর্থাৎ এর কারণ/ইল্লাত জানা নেই এবং এখানে কিয়াস হবে না)। [বুলুগুল কাসিদ]

4 এগুলো ছাড়া ওযু বাতিল।

5 পাগল না হওয়া।

6 ৭৯ নাম্বার ফুটনোট দ্রষ্টব্য।

7 অর্থাৎ চুরি করা বা অনুরুপ পানি দিয়ে ওযু হবে না।

8 পানি পৌঁছাতে বাধা দেয়, এমনকি সেটা শুধু নখে হলেও, যেমন নেইলপালিশ, অথবা কোনো বিশেষ কসমেটিকস ইত্যাদি।

9 এগুলোর একটি বাদ গেলে ওযু বাতিল।

10 এটা মাযহাবের মুফরাদাত বা অনন্য মত। আবু দাউদে হাদিস রয়েছে, “কান মাথার অন্তর্ভুক্ত” – (কাদ্দুমিস প্রাইমার- শাইখ জো ব্রাডফোর্ড)

11 অর্থাৎ স্বাভাবিক তাপমাত্রায় কোনো অঙ্গ ধোয়ার পর অন্য কোনো কাজ করতে গিয়ে যদি এমন পরিমাণ বিরতি নেওয়া হয় <ভুলে যাওয়াবশত হলেও> যাতে সেই অঙ্গ শুকিয়ে যায়, তাহলে আবার শুরু হতে ওযু করতে হবে। এর চেয়ে অল্প বিরতি হলে সমস্যা নেই।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *