নাজাসাহ অপসারণ – বিদায়াতুল আবিদ

[অনুবাদের সাথে <>, [] এবং ফুটনোটে বিভিন্ন কিতাব এবং দরস থেকে বুঝার সুবিধার্থে বিভিন্ন জিনিস সংযুক্ত করা হয়েছে। বাকিটা মতনের অনুবাদ]

নাজাসাহ1 দ্বারা অপবিত্র সকল বস্তু –

[অন্তত] সাতবার ধোয়া প্রয়োজন, যদি তাতে পরিস্কার হয়2। যদি না হয়, তাহলে পরিষ্কার হওয়া পর্যন্ত। তাহুর পানি দ্বারা। প্রয়োজন হলে ঘষা-মাজাসহ3– যদি না অপবিত্র স্থানের ক্ষতিসাধন হয়4। এবং সম্ভবপর ক্ষেত্রে প্রতিবার ধোয়ার পর ভেজানো অংশ পানির উৎসের বাইরে নিঙড়ে নিতে হবে।

যদি কোনোকিছু কুকুর বা শুকর দ্বারা অপবিত্র হয়, তাহলে তা [অন্তত] একবার মাটি5 6 দ্বারা হতে হবে।

স্বাদ থেকে গেলে তা যথেষ্ট হবে না, তবে শুধু রঙ বা শুধু গন্ধ বা এদুটোর একত্র উপস্থিতি ব্যতীত, যদি তা অপসারণ করা সম্ভব না হয়7

যে ছেলে-শিশু এখনো স্পৃহাবশত শক্ত খাবার খাওয়া শুরু করেনি8– তার প্রস্রাবে[র জায়গাটুকুতে] পানি ছিটানো, অর্থাৎ তা পানিতে ভিজিয়ে সিক্ত করে ফেলা যথেষ্ট।

পাথর, জলাধার এবং ভূপৃষ্ঠ, তরল নাজাসাত দ্বারা অপবিত্র হলে – এমনকি তা কুকুর অথবা শুকরের হলেও- তাতে [নাজাসাতের] রঙ এবং গন্ধ অপসারিত না হওয়া পর্যন্ত বেশি বেশি পানি ঢালতে হবে9, যদি না [রঙ বা গন্ধের] একটি বা উভয়ই অপসারণ করা অসম্ভব হয়10

যদি ছেলেশিশুর মুত্র ও ভূমি ইত্যাদিতে পানি থেকে যায়, তাহলে পানির উপস্থিতিসহই সেগুলো পবিত্র11

সূর্য ও বাতাস দ্বারা বা শুকিয়ে গেলে ভূপৃষ্ঠ পবিত্র হয় না।

আগুন দ্বারা নাজাসাত পবিত্র হয় না, [তা যদি করাও হয়] তাহলে এর ছাই12 অপবিত্র।

মদ নিজে থেকে বা অনিচ্ছাকৃত13 রূপান্তরের ফলে, ভিনেগারে পরিণত হলে, তা পবিত্র হয়ে যায়। তবে ইচ্ছাকৃত ভাবে ভিনেগারে রূপান্তরিত করতে চাওয়া ব্যতীত14। এর পাত্রও অনুরুপ15

যদি নাজাসাহ গোপন থাকে, তাহলে নিশ্চিতভাবে পরিস্কার হওয়ার আগ পর্যন্ত ধুতে হবে16


ফুটনোট:

1 এখানে তিন ধরণের নাজাসাহ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এক হচ্ছে, ‘বড় নাজাসাহ’ যেমন, শুকর বা কুকুর দ্বারা যে অপবিত্রতা তৈরি হয়। দ্বিতীয়ত হচ্ছে, ‘ছোট নাজাসাহ’, যেমনঃ ছেলেশিশুর মুত্র। আর তৃতীয়ত হচ্ছে ‘সাধারণ নাজাসাহ’’ যা এই দুটোর মাঝামাঝি।

2 পরিস্কার হোক বা না হোক, ন্যূনতম সাতবার ধুতে হবে মুতামাদ অনুসারে। মাজহাবে আরও দুটি মত রয়েছে এই ব্যাপারে, একটি হচ্ছে ন্যূনতম তিনবার, আরেকটি মত হচ্ছে একবার ধুলে পরিস্কার হলে সেটাই যথেষ্ট হবে।

3 হতে পারে সেটা নখ দ্বারা, অথবা অন্য কোনো বস্তু যেমন- পাথর ইত্যাদি দ্বারা।

4 অর্থাৎ উদাহরণস্বরূপ, যে কাপড় ধোয়া হচ্ছে, যদি কোনো পর্যায়ে সেটা ঘষা-মাজার ফলে ছিঁড়ে যাবার আশঙ্কা হলে তখন আর ঘষা-মাজা ফরয থাকবে না।

5 যে ধরণের মাটি দ্বারা তায়াম্মুম করা হয়।

6 প্রথম ধোওয়াতে মাটি ব্যবহার করলে মুস্তাহাব। তবে সাতটির মধ্যে যে কোনো একবারে মাটি ব্যবহার করলেই চলবে। মাযহাব অনুসারে, মাটির বদলে অন্যান্য পরিস্কারকারী বস্তু, যেমন- সাবান ইত্যাদি ব্যবহার করলেও চলবে, বিশেষ করে যেসব ক্ষেত্রে মাটি ব্যবহার করা ওই বস্তুর জন্যে ক্ষতিকর হতে পারে।

7 অর্থাৎ নাজাসাহের স্বাদ দূর হওয়া পর্যন্ত ধোওয়া চালিয়ে যেতে হবে। তবে গন্ধ কিংবা রঙ অপসারণ করা কঠিন হলে সেটা কাপড়ে কিছুটা থাকলেও সমস্যা নেই।

8 অর্থাৎ সে শক্ত খাবারের জন্যে আকাঙ্ক্ষা করে না, কিংবা তাকে না দিলে কান্না করে না। হালকা শক্ত খাবার শুরু করলেও দুধ-ই তার প্রধান খাবার। আর যদি তা না হয়, তাহলে আগের নিয়মে পূর্ণ ধৌত করা প্রয়োজন।

9 যেমনটা রাসুল (সা) মসজিদে বেদুইনের মূত্রের উপর ঢেলে দিতে সাহাবী (রা)-দের বলেছিলেন।

10 অর্থাৎ মূলত এখানে চেষ্টা করতে হবে পানি ঢেলে রঙ এবং গন্ধ দূর করে ফেলার। যদি তা সম্ভব না হয়, তাহলে ভাল বা পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি ঢেলে দিলেই চলবে।

11 এটি একটি মুফরাদাত মাস’আলা। ছেলেশিশুর মুত্র বা ভুমির উপর পবিত্রকরণের জন্যে পূর্বোক্ত প্রয়োজনীয় পরিমাণে পানি ঢালার পর সেই জায়গা ঢালা-পানিসহ পবিত্র হয়ে যাবে, পানি শুকানোর প্রয়োজন নেই, যদিও স্বাভাবিক নিয়ম অনুসারে নাজাসাতের সাথে দুই কুল্লাহর কম পানি মিশলেই সেই পানি নাজিস হয়ে যায়।

12 অথবা ধোয়া এবং অনুরুপ কিছু।

13 অর্থাৎ কেউ কিছু করার ফলে এটা ভিনেগারে পরিবর্তিত হয়ে যায়, কিন্তু উক্ত ব্যক্তির উদ্দেশ্য ভিনেগারে পরিবর্তন করানো ছিল না।

14 অর্থাৎ অ্যালকোহল প্রাকৃতিকভাবে ভিনেগারে পরিণত হলে সেটা পবিত্র হয়ে যাবে। তবে কেউ যদি ইচ্ছাকৃতভাবে কোনো প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সেটাকে ভিনেগারে পরিণত করে, তাহলে সেটা অপবিত্রই থেকে যাবে।

15 অ্যালকোহল যে পাত্রে থাকে সেই পাত্রের হুকুমও অ্যালকোহলের মতই। সেটার মধ্যে অ্যালকোহল যদি প্রাকৃতিকভাবে ভিনেগারে পরিণত হয়, তাহলে অ্যালকোহলের ন্যায় সেই পাত্রও পবিত্র হয়ে যাবে।

16 ধরা যাক কোনো কাপড়ের ১০ বর্গ-ইঞ্চি জায়গার মধ্যে নাজাসাহ আছে, কিন্তু ঠিক কোথায় এটা জানা নেই। এক্ষেত্রে তাহলে পবিত্র হওয়ার ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া পর্যন্ত [পুরো ১০ বর্গ-ইঞ্চি জায়গা] ধুতে থাকতে হবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *