নারীর কণ্ঠ এবং নাশিদ

ইমাম ইবনে বালবান আল-হানবালি [র] বলেছেনঃ

و صوتها ليس بعورة. لكن يحرم التلذذ بسماعه و لو بقراءة

তাঁর [গাইরে মাহরাম নারীর] কণ্ঠ আওরাহ নয়। তবে [পুরুষের] জন্যে উপভোগ করে শোনা হারাম, কিরাআত হলেও।

মুখতাসার আল-ইফাদাত

ইমাম মারদাবি (র) বলেছেন,

 صوت الأجنبية ليس بعورة، على الصحيح من المذهب

গাইরে মাহরাম নারীর কণ্ঠ আওরাহ নয়। এটা মাযহাবের সহিহ মত।

আল-ইনসাফ

শাইখ ইউসুফ বিন সাদিক বলেছেন, এজন্যে নারীর জন্যে আযান বা ইকামাত দেওয়া মাকরুহ। আর যদি নারী নাশিদ গায়, তাহলে মানুষের সেটা ঘৃণা করা কথা না, বরং উপভোগ করার কথা, যদি না তাঁর স্বর আসলেই বেশি খারাপ স্বর হয়। তাই উপভোগের আশা থাকলে তাঁর জন্যে (গাইরে মাহরামের সামনে) নাশিদ করাও হারাম হবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *