মামা-ভাগ্নে

শাইখ মুহাম্মাদ আল-খালওয়াতি (১০৮৮হি) পরবর্তী যুগের হাম্বলি ফিকহের অন্যতম ‘আলিম। হাম্বলি ফিকহের দুই মু’তামাদ কিতাব “আল-মুনতাহা” এবং “আল-ইক্বনা”র উপর লেখা তার হাশিয়াকে অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে দেখা হয়। এর অন্যতম কিছু কারণ হলো আরবি ভাষায় তার পান্ডিত্য, তার ফিকহি দক্ষতা এবং তার প্রিয় শিক্ষক ও মামার কাছ থেকে প্রশ্নের মাধ্যমে জেনে নেয়া অনেক উত্তর যা তিনি হাশিয়া দুটিতে উল্লেখ করেছেন।

তার মামা আর কেউ নন, স্বয়ং মাযহাবের শারিহ, শাইখুল মাযহাব আল-আল্লামা শাইখ মানসুর আল-বুহুতি (১০৫১হি)। শাইখ নিজেও “আল-মুনতাহা” এবং “আল-ইক্বনা”র উপর হাশিয়া এবং শারহ দুটিই লিখে গিয়েছেন (অর্থাৎ মোট ৪টি) এবং এগুলোর গুরুত্ব মনে হয় না বলার কোন প্রয়োজন আছে।

ওহ! আরেকটা কথা। উপরের শিরোনামটা যদি “শ্বশুর-জামাই” দিতাম তাও ভুল হতো না! শাইখ আল-বুহুতি নিজের মেয়েকে তার ছাত্র ও ভাগ্নের সাথে বিয়ে দিয়েছিলেন।

লিখেছেনঃ Imran Helal [ইমরান হেলাল]

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *