যাদুল মুস্তাকনি

লেখকঃ শারফুদ্দিন মুসা ইবনে আহমদ ইবনে মুসা ইবনে সালিম ইবনে ঈসা আল-মাকদিসি আল-দিমিশকি (মৃত্যুঃ ৯৬৮ হিজরি)

আরব উপদ্বীপে, বিশেষ করে নজদে এই কিতাব পাঠদানের জন্যে জনপ্রিয়। ইবনে কুদামাহর ‘আল-মুকনি’ গ্রন্থের সংক্ষিপ্ত করে এই কিতাব লেখা হয়েছে। তবে কিছু ক্ষেত্রে ইমাম হাজ্জাউই বাড়তি অংশ যোগ করেছেন, যা মূল কিতাব ‘আল-মুকনি’তে নেই।

এই কিতাবের বিশেষ বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, বাকি মুখতাসার মতনগুলো থেকে এখানে মাসায়েল বেশি। তাছাড়া এই কিতাবের লেখক মুসা আল-হাজ্জাউইও মাযহাবের অন্যতম নির্ভরযোগ্য আলেম, যিনি মুতামাদ নির্ধারণের অন্যতম কিতাব ‘আল-ইকনা’র রচয়িতা। তবে এখানে বেশ কিছু মাসআলায় মাযহাবের নির্ভরযোগ্য কওল বা মুতামাদের খিলাফ মত বিদ্যমান। ইমাম হাজ্জাউই [র] নিজেই তাঁর ‘ইকনা’ গ্রন্থে কিছু মাসআলায় খিলাফ করেছেন। ইমাম বুহুতি তাঁর ব্যাখ্যা ‘রওদুল মুরবি’তে এমন কিছু মাসআলা উল্লেখ করেছেন। মসজিদুল হারামের শিক্ষক আলি বিন মুহাম্মাদ আল-হিন্দি আল-হায়িলি ৩২টি মাসআলা উল্লেখ করেছেন।

ব্যাখ্যাঃ

শারহঃ

১। আল–রওদুল মুরবি, লেখকঃ ইমাম মনসুর ইবনে ইউনুস আল-বুহুতি (র)। এটা এই কিতাবের একমাত্র ক্লাসিক্যাল শারহ। ইমাম বুহুতি এই কিতাব লেখার পর হাম্বলিরা এর উপর বিভিন্ন হাশিয়া লিখতে শুরু করেন, যেমনঃ

  • হাশিয়া আল-রওদুল মুরবি, লেখক আব্দুল ওয়াহহাব ইবনে ফাইরুজ (মৃত্যু ১২০৫ হি)
  • হাশিয়া আল-শাইখ আল-আনকারী, লেখকঃ আল-আনকারী (মৃত্যু ১৩৭৩ হি)
  • হাশিয়া ইবনে বাদরান, লেখকঃ ইবনে বাদরান (মৃত্যু ১৩৪৬)
  • হাশিয়া ‘আলা শারহ আল-যাদ, লেখকঃ ইবনে দাওইয়ান (মৃত্যু ১৩৫৩)
  • আল-মুখতাআরাত আল-জাল্লিয়াহ, লেখন আব্দুর রহমান ইবনে নাসির আস-সাদি (মৃত্যু ১৩৭৬)
  • হাশিয়া ইবনে কাসিম, লেখক আব্দুর রহমান ইবনে কাসিম (মৃত্যু ১৩৯২)

এই কিতাবের সাম্প্রতিক সময়ে কিছু ব্যাখ্যা লেখা হয়েছে। যেমনঃ

২। শারহুল মুমতি, লেখকঃ শাইখ মুহাম্মাদ ইবনে সালিহ আল-উসাইমিন। সাম্প্রতিক সময়ে জনপ্রিয় এই ব্যাখ্যা। তবে লেখক অনেকগুলো মাসায়েলে মাযহাবের খিলাফ করেছেন। দলিল-আদিল্লাহ এবং তুলনামুলক আলোচনা করেছেন। এই কিতাবের একটি মুখতাসার করেছেন শাইখাহ কামিলাহ আল-কুওয়াইরি, এখানে তিনি মতনের মূল ব্যাখ্যা রেখে বাকি অংশ বাদ দিয়েছেন, পাশাপাশি মুতামাদের খিলাফ মাসায়েলগুলো উল্লেখ করেছেন। মাযহাবের খিলাফ কিছু মতে মাযহাবের অন্য কওলের রেফারেন্স দিয়েছেন। মাযহাবের ছাত্রের জন্যে এই মুখতাসার বেশি উপকারী হতে পারে।

৩। শারহ মতন আল–যাদ, শাইখ আবদুল্লাহ ইবনে আকিল (র)। এই ব্যাখ্যাটি আকারে ছোট, সহজ ভাষায় কিছু স্থানে ব্যাখ্যা করেছেন, কিছু জায়গায় মাযহাবের মুতামাদ এবং ইবনে তাইমিয়া আর শাইখ আস-সাদির মত উল্লেখ করেছেন।

৪। শারহ কিতাব যাদুল মুস্তাকনি, লেখকঃ শাইখ  হাম্মাদ বিন আবদুল্লাহ আল-হাম্মাদ, এখানে বেশ কিছু মাসায়েলে শাইখুল ইসলাম ও নজদের বিভিন্ন আলেমের মত উল্লেখ আছে।

৫। শারহ যাদুল মুস্তাকনি, লেখকঃ শাইখ খালিদ আল-মুশাইকিহ; শাইখ বেশ কিছু মাসায়েলে মাযহাবের সাথে খিলাফ করেছেন।

হাশিয়াঃ

১। হাশিয়া ‘আলাযাদুলমুস্তাকনি, লেখকঃ আব্দুল আজিজ ইবনে আব্দুর রহমান ইবনে বিশর আল-হাশিমি (মৃত্যুঃ ১৩৫৯) 

২। হাশিয়াআলশাইখআলিআলহিন্দি, লেখকঃ শাইখ আলি ইবনে মুহাম্মাদ আল-হিন্দি, লেখকঃ আলি ইবনে মুহাম্মাদ আল-হিন্দি আল-মাক্কি

৩। আলসালসাবিলফিমারিফাতিলদলিল, লেখক সালিহ ইবনে ইব্রাহিম আল-বালিহি (মৃত্যু ১৪১০)

এছাড়া এই কিতাবের উপর ভিত্তি করে কিছু নাযমও রচিত হয়েছে।

রেফারেন্সঃ

১। মাদারিজ তাফাক্কুহ আল-হানবালি, শাইখ আহমদ বিন নাসির আল-কু’আইমি (হাফিযাহুল্লাহ)

২।  Hanbali Scholars & Books (Summarized from Al-Madkhal Al-Mufassal of Bakr Abu Zayd)

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *