শাইখ আবদুল্লাহ ইবনে আকিল

শাইখ আব্দুল্লাহ ইবনে আকিল আল-হাম্বলি [রহিমাহুল্লাহ]

শাইখ আমির বাহজাত [ডানে] এবং শাইখ আবদুল্লাহ ইবনে আকিল [বামে]

নিচের ছবির ডানপাশের মানুষটি হচ্ছেন শাইখ আব্দুল্লাহ ইবনে আকিল রহিমাহুল্লাহ। তাকে অনেকে আমাদের সময়ের “শাইখুল হানাবিলা” বলেছেন। তিনি সৌদির প্রখ্যাত হাম্বলি আলিম শাইখ আব্দুর রহমান আস-সাদির অন্যতম ছাত্র ছিলেন।

তিনি সৌদির ইমাম মুহাম্মাদ ইবনে সৌদ ইউনিভার্সিটি থেকে শিক্ষা লাভ করেন। তিনি সৌদিতে সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ছিলেন। ১৫ বছরের উপর শাইখ মুফতি মুহাম্মাদ ইবনে ইব্রাহিম আল শাইখের সাথে সৌদি ফতওয়া কাউন্সিলে কাজ করেছেন এবং সেইসময়ে তাঁর নিকট হতে উপকৃত হন। তিনি পাশাপাশি তিনি আল-রাজিহ ব্যাঙ্কের ডাইরেক্টর ছিলেন। শাইখ ইবনে উসাইমিন যখন শাইখ আস-সাদির নিকট পড়তে আসেন, তখন শাইখ আস-সাদি উনাকে পরীক্ষা করার পর তাকে বলেন প্রথমে শাইখ ইবনে আকিলের নিকট অধ্যয়ন করার জন্যে, এবং তাঁর অনুমোদন দেবার পর তিনি শাইখ সাদির কাছে পড়তে পারেন।

বিভিন্ন আলিমের নিকট অধ্যয়ন করার ফলে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পর্যন্ত ৮জন আলিমদের হতে হাম্বলি মাযহাবে বেশ কয়েকটি চেইন আছে। সবচেয়ে ছোট চেইনগুলোর একটি হচ্ছে-

শাইখ আব্দুল্লাহ ইবনে আকিল

>

শাইখ আব্দুর রহমান আস সাদি

>

শাইখ আহমদ বিন ইব্রাহিম বিন ইসা

>

আব্দুর রহমান বিন হাসান আল শাইখ

>

আব্দুল্লাহ বিন মুহাম্মাদ বিন আব্দুল ওয়াহহাব

>

মুহাম্মাদ বিন আব্দুল ওয়াহহাব

>

আব্দুল ওয়াহহাব বিন সুলাইমান

>

মুহাম্মাদ বিন নাসির

>

নাসির বিন মুহাম্মাদ

>

মুহাম্মাদ বিন আব্দুল কাদির

>

আহমদ বিন ইয়াহিয়া বিন ‘আতওয়া

>

আলি বিন সুলাইমান আল মারদাওয়ি

>

আল-যাইন আব্দুর রহমান বিন সুলাইমান আবু শা’র

>

ইবন আল-লাহহাম

>

ইবনে রজব

>

ইবনুল কায়্যিম

>

ইবনে তাইমিয়া

>

আব্দুল হালিম ইবনে তাইমিয়া

>

আল-মজদ ইবনে তাইমিয়া

>

ইবনে আল মিন্নি

>

আবু বকর আল দিনাওয়ারি

>

আবু আল-খাত্তাব আল কালওয়াযানি

>

আল কাযি আবু-ইয়ালা

>

ইবনে হামিদ আল ওয়াররাক

>

গোলাম আল খাল্লাল

>

আল খাল্লাল

>

আল মাররুযি

>

ইমাম আহমদ ইবনে হানবাল

>

সুফিয়ান বিন উয়াইনা

>

আমর ইবনে দিনার

>

আব্দুল্লাহ ইবনে উমর (রা)

>

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম।

গতদিন শাইখ আমীর বাহজাতের ব্যাপারে লিখেছিলাম, উনি শাইখ ইবনে আকিলের সরাসরি ছাত্র ছিলেন। সেখানে যেই চেইন দিয়েছিলাম, ওখানে মুফতি ইবনে ইব্রাহিম হয়ে শাইখ আব্দুল্লাহ ইবনে আকিলের হাম্বলি মাযহাবের আরেকটি চেইন পাবেন। তাছাড়া তাঁর উল্লেখযোগ্য আরেকজন শিক্ষক হচ্ছেন উনাইযার স্বনামধন্য মুহাদ্দিস শাইখ আলি বিন নাসির আবু ওয়াদি, তাঁর নিকট তিনি মুসলিম, বুখারি, সুনানের কিতাবাদি, মুসনাদে আহমদ এবং মিশকাত আল মাসাবিহ অধ্যয়ন করেন এবং ইজাজাহ লাভ করেন। শাইখ আমিন আল-শানকিতি, শাইখ আব্দুর রাজ্জাক আল-আফিফির মত আলিমদের নিকট হতেও তিনি উপকৃত হয়েছেন।

তাঁর তাকওয়া এবং আদবের ব্যাপারে নামকরা আলিমগণ প্রশংসা করেছেন। পরিবারের মানুষজনের ব্যাপারে তিনি সচেতন ছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে একজন নামকরা আলিম বলেন- “তিনি ছিলেন একজন সত্যিকারের বান্দা, যার রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পর্যন্ত সর্বোচ্চ চেইন আছে। তিনি হচ্ছেন অবশিষ্ট বড়-উলামাদের একজন এবং শাইখ আস-সাদির একজন ছাত্র।”

১৯১৭ সালে তিনি জন্মগ্রহণ করেন এবং প্রায় ৯৫ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *