উসুল

ইখতিলাফের আদাব

যেসকল বিষয়সমূহ ইজতিহাদের গণ্ডির মধ্যে রয়েছে, সেগুলোতে অন্যদের ভর্ৎসনা করা উচিত নয়। ইবনুল জাওজি [র] আল-সির আল-মাসুনে বলেছেনঃ“আমি ইলমি ঘরানার একদল মানুষকে এমন কাজ করতে দেখেছি, যেটা কেবল সাধারণ মানুষকে মানাতে পারে। একজন হাম্বলি কোন শাফেয়ী মসজিদে সালাত পড়লে শাফেয়ীরা তাঁর বিরুদ্ধে লেগে পড়ত, এবং যখন কোন শাফেয়ী এসে হাম্বলি মসজিদে সালাত পড়ত এবং বিসমিল্লাহ …

ইখতিলাফের আদাব Read More »

হাম্বলিরা কি ইবাদাতে কিয়াসকে প্রত্যাখ্যান করে?

ইবাদাতের ক্ষেত্রে কি হাম্বলিরা কিয়াসকে প্রত্যাখ্যান করে? – “ঠিক তা নয়। কিয়াসের বিভিন্ন ধরণ রয়েছে। কিয়াস আল-ইল্লাহ সাধারণত ইবাদাতের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়, কেননা ইবাদাত পুরোপুরি অনুসরণের উপর ভিত্তিশীল। তবে আরেক ধরণের কিয়াস রয়েছে- “কিয়াস আল-শাবাহ”, যেটা হাম্বলি এবং অন্যান্যরা ব্যবহার করে। এই কিয়াস দুটো জিনিসের মধ্যে দৃঢ় সাদৃশ্যের উপর ভিত্তিশীল। যেমন, “বিসমিল্লাহ” পাঠ করার হাদিস …

হাম্বলিরা কি ইবাদাতে কিয়াসকে প্রত্যাখ্যান করে? Read More »

আহকাম আত-তাকলিফিয়া

[রিসালাতুন ফি উসুলিল ফিকহ ‘ইনদাল হানাবিলা এবং শাইখ ইউসুফ বিন সাদিক আল হাম্বলির দরস অনুসারে] হাম্বলি মাযহাব অনুযায়ী এগুলো হচ্ছে পাঁচটি- ১। ওয়াজিব/ফরযঃ ওয়াজিব বা ফরয হচ্ছে সত্যিকারের [হাকিকাত] আদেশ, কোন রুপক আদেশ নয়। এটি আদায় করলে সওয়াব পাবে, বর্জন করলে গুনাহ হবে। ওয়াজিব এবং ফরয হাম্বলি মাযহাবে সাধারণত একই বিষয়, মাযহাব এবং জুমহুরের মত …

আহকাম আত-তাকলিফিয়া Read More »

ইমাম আহমদের পাঁচ উসুল

আল্লামা ইবনুল ক্বাইয়্যিম রহিমাহুল্লাহ ই’লামুল মুওয়াক্কি’য়ীনে বলেন: ইমাম আহমাদ বিন হাম্বালের ফাতাওয়া হত পাঁচটি উসুলের ভিত্তিতে:- প্রথম: নুসুস। [ নুসুস نصوص হচ্ছে নাস/নস এর نص এর বহুবচন। নস অর্থ কুরআন-সুন্নাহর ভাষ্য বা টেক্সট। ] যখন নস পাওয়া যেত, তবে এটি যা আবশ্যক করে তিনি তার দ্বারা ফাতওয়া দিতেন। এক্ষেত্রে তিনি ভ্রুক্ষেপ করতেন না যে, এটি …

ইমাম আহমদের পাঁচ উসুল Read More »

হাম্বলি উসুলের কিতাব- শাইখ ফারিস ফালিহ

“উসুলুল ফিকহের উপর প্রত্যেক মাযহাবেরই কিতাবাদি বিদ্যমান, যেগুলো সংশ্লিষ্ট মাযহাবগুলোর ফকিহগণ রচনা করেছেন। বিষয়টি সুবিদিত। যেহেতু হাম্বলি মাযহাবও [সর্বজনস্বীকৃত] চার মাযহাবের একটি, এই মাযহাবেরও নিজস্ব উসুল রয়েছে এবং নিজস্ব কিতাবাদিও আছে। যদিও সামগ্রিক বিচারে হাম্বলি মাযহাবের উসুল মুতাকাল্লিমিনদের ধারা অনুসরণ করে। আর যারা বলে, [উসুলুল ফিকহে] হাম্বলিদের নিজস্ব যথেষ্ট কিতাবাদি নেই, তারা ভুল বলে। বরং …

হাম্বলি উসুলের কিতাব- শাইখ ফারিস ফালিহ Read More »

উসুল নিয়ে হাম্বলীদের প্রধান আকড়গ্রন্থসমূহ:

উসুল নিয়ে হাম্বলীদের প্রধান আকড়গ্রন্থসমূহ: ১. আল উদ্দাহ, কাজী আবু ইয়ালা (৫ খন্ড)২. আল ওয়াদেহ, শায়খুল ইসলাম ইবনে আকীল (৫ খন্ড)৩. আত তামহীদ, আবুল খাত্তাব (৪ খন্ড)৪. রওদাতুন নাযের, ইবনে কুদামা৫. উসুলুল ফিকাহ, ইবনে মুফলিহ (৪ খন্ড)৬. আত তাহবীর, আল মারদাবী (১০ খন্ড)৭. আল কাওকাবুল মুনীর, আল ফুতুহী (৪ খন্ড) – শায়খ ফারিস ইবনে ফালেহ …

উসুল নিয়ে হাম্বলীদের প্রধান আকড়গ্রন্থসমূহ: Read More »

উসুল অধ্যয়নের পদ্ধতি- শাইখ আব্দুল ওয়াহিদ আল-আযহারি

উসুল নিয়ে শায়েখ আব্দুল ওয়াহেদ আযহারীর প্রস্তাবিত দেরাসা পদ্ধতিঃ ১. ছাত্র الورقات এর মতন মুখস্ত করবে মাহাল্লীর শরাহ সহ অথবা উমরীতীর نظم الورقات। অতঃপর কোন ওস্তাজের কাছে হেফজ করা মতন শোনাবে। ওস্তাজ ফাক্কুল এবারত, তসবীরে মাসায়েল, তমসীলসহ কিছু কিছু ফুরুয়ের প্রয়োগ শিখাবেন। এরপরে شرح عبد الحميد قدس এবং حاشية النفحات পড়বে। আধুনিক সময়ে ওয়ারাকাতের উপর …

উসুল অধ্যয়নের পদ্ধতি- শাইখ আব্দুল ওয়াহিদ আল-আযহারি Read More »

মুফরাদাতুল হানাবিলা

আল-মুফরাদাত হলো এমন কোন মাস’আলা যেখানে সুপরিচিত চার মাযহাবের কোন একজন ইমাম বাকি তিন মাযহাবের প্রসিদ্ধ (মাশহুর) মতের বিপরীত অবস্থান নিয়েছেন। এধরনের মুফরাদাতের ব্যাপারে যে মাযহাবের ‘আলিমগণ সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন এবং সর্বোচ্চ সংখ্যক বই লিখেছেন, তারা হলেন ‘উলামা আল-হানাবিলা। বিশেষত ইমাম আল-ক্বাদি আবু ইয়ালার (রাহিমাহুল্লাহ) সমকালিন ‘আলিমগণ। এর একটা কারণ আছে। কারণটা হলো ঐ …

মুফরাদাতুল হানাবিলা Read More »

হাম্বলি উসুল অধ্যয়নের পদ্ধতি- শাইখ ফারিস আল-ফালিহ

শায়খ ফারিস ইবনে ফালেহ হাম্বলির প্রস্তাবিত উসুল দেরাসা পদ্ধতিঃ উসুল শেখার পূর্বে মতন ধরে যা শিখতে হবেঃ১. নাহু২. সরফ ও বালাগাত৩. মানতেক উপরোক্ত বিষয়গুলো আয়ত্ত হলে উসুল শুরু করতে পারবেঃ প্রথম পর্যায়ঃ১. যাদুল উসুল ইলা ইলমিল উসুল – ফারিস ইবনে ফালেহ২. মতনে গয়াতুল সুল – ইবনে মাবরাদ দ্বিতীয় পর্যায়ঃ১. আল মুখতাসার ফি উসুলিল ফেকাহ – …

হাম্বলি উসুল অধ্যয়নের পদ্ধতি- শাইখ ফারিস আল-ফালিহ Read More »